ইসলামের চোখে হস্তমৈথুনের খারাপ দিক

প্রত্যেক পুরুষ ও নারী জীবনে একবার হলেও হস্তমৈথুন করে থাকেন। যদিও বর্তমানে হস্তমৈথুনকে স্বাভাবিক যৌনাচার হিসাবে ধরা হয় তবুও ইসলামের দৃষ্টিতে হস্তমৈথুন এর ক্ষতিসমূহ অনেক। এটি করা হারাম এবং কবীরা গুনাহ। শরীয়ত অনুযায়ী যারা হস্তমৈথুন করে তারা সীমালংগনকারী । চলুন দেখে নিই হস্তমৈথুনের শারীরিক সমস্যা গুলো । পুরুষ হস্তমৈথুন করলে প্রধান যে্সব সমস্যায় ভুগতে পারে তার মধ্যে হল –

১. অতিরিক্ত হস্তমৈথুন পুরুষে যৌনাঙ্গকে দুর্বল করে দেয়। যৌন শক্তি বৃদ্ধি করবে যে খাবারগুলো তা জেনে নিন।

২. পুরুষ হস্তমৈথুন করতে থাকলে সে ধীরে ধীরে নপুংসক হয়ে যায়। অর্থাৎ যৌন সংগম স্থাপন করতে অক্ষম হয়ে যায়।

৩. অকাল বীর্যপাত হলে বীর্যে শুক্রাণুর সংখ্যা কমে যায় । তখন বীর্যে শুক্রাণুর সংখ্যা হয় ২০মিলিয়নের কম ।। যার ফলে সন্তান জন্মদানে ব্যর্থতার দেখা দেয় । (যে বীর্য বের হয় সে বীর্যে শুক্রাণুর সংখ্যা হয় ৪২ কোটির মত । স্বাস্থ্যবিজ্ঞান মতে কোন পুরুষের থেকে যদি ২০ কোটির কম শুক্রাণু বের হয় তাহলে সে পুরুষ থেকে কোন সন্তান হয়না।

৪. আরেকটি সমস্যা হল অকাল বীর্যপাত। ফলে স্বামী তার স্ত্রীকে সন্তুষ্ট করতে অক্ষম হয় । বৈবাহিক সম্পর্ক বেশিদিন স্থায়ী হয় না।

শরীরের অন্যান্য যেসব ক্ষতি হয়-

১. স্মরণ শক্তি কমে যায় ।

২. চোখের ক্ষতি হয় ।

৩. মাথা ব্যথা হয় ।

৪. Nervous system, heart, digestive system, urinary system এবং আরো অন্যান্য system ক্ষতিগ্রস্ত হয় । পুরো শরীর দুর্বল হয়ে যায় এবং শরীর রোগ ব্যাধি ঘিরে ধরে ।

৫. হস্তমৈথুনের ক্ষতিসমূহ এর ভিতর আরেকটি  হল Leakage of semen। অর্থাৎ সামান্য উত্তেজনায় যৌনাঙ্গ থেকে তরল পদার্থ বের হয় । ফলে অনেক মুসলিম ভাই নামায পড়তে পারেন না । মহান আল্লাহ্ তা’ আলার স্মরণ থেকে মুসলিমদের দূরে রাখে হস্তমৈথুন।

রসূলুল্লাহ্ ( সঃ ) বলেছেন-“যে ব্যক্তি আমাকে তার দুই চোয়ালের মধ্যবর্তীজিনিস (জিহ্বার) এবং দুইপায়ের মধ্যবর্তী জিনিস (যৌনাঙ্গের) নিশ্চয়তা (সঠিক ব্যবহারের) দেবে আমি তার বেহেশতের নিশ্চয়তা দিব । ” – (বুখারী ও মুসলিম)

এ বিষয়ে আরও পড়ুন   সপ্তাহের কোন বিশেষ রাতে নিয়ন্ত্রণ হারায় মহিলারা ?

ইসলামের দৃষ্টিতে হস্তমৈথুন কখন গ্রহনযোগ্য না । তাই হস্তমৈথুন ত্যাগ করুন। জেনে নিন হস্তমৈথুন ছাড়ার কার্যকরী উপায় ।