শীতকালে ৭ ব্যায়াম

শীত বাড়ছেযাঁরা বাইরে নিয়মিত হাঁটতে বা ব্যায়াম করতে যান, তাঁরা পড়ছেন বিপাকেকুয়াশা, শিশির, ঠান্ডা হাওয়া কাবু করতে পারে এই সময়তাই বলে কি ব্যায়াম বা হাঁটাহাঁটি বন্ধ থাকবে? শীতকালে বাইরে ব্যায়ামের জন্য সাত পরামর্শ:

১. খুব ভোরে বা সন্ধ্যার পর যাঁদের হাঁটার অভ্যেস, তাঁরা সময়সূচি পরিবর্তন করে নিতে পারেন। এই দুই সময় ঠান্ডা হাওয়ার প্রকোপ বেশি। সকালে একটু দেরিতে বা বিকেলের নরম রোদে হাঁটুন।

 

২. পরতে পরতে কয়েকটি পোশাক পরে নিন। এতে ঠান্ডা লাগার সম্ভাবনা কমে। যেমন ভেতরে একটা ফুলহাতা গেঞ্জি, তার ওপর একটা হালকা পুলওভার বা পাতলা সোয়েটার, এর ওপর একটা হালকা জ্যাকেট পরে নিন। দুটি পোশাকের মধ্যবর্তী অংশে আটকে থাকা বাতাস তাপ ধরে রাখে। শর্টস বা ট্রাকস্যুট বা পাজামার নিচে লম্বা মোজা পরে নেবেন। প্রয়োজনে মাথায় ক্যাপ, স্কার্ফ বা মাফলার জড়িয়ে নিন।

 

৩. জগিং, হাত-পা ছোড়াছুড়ি বা এক জায়গায় দাঁড়িয়ে হালকা ব্যায়াম করে শরীরটাকে আগে প্রস্তুত করে নিন।

৪. হাঁপানি রোগীরা হাঁটতে যাওয়ার আগে দুই চাপ ইনহেলার নিতে পারেন।

৫. হালকা সর্দি-কাশিতে হাঁটতে নিষেধ নেই। তবে জ্বর বা তাপমাত্রা ১০০ ডিগ্রি ফারেনহাইটের বেশি থাকলে বাইরে হাঁটতে না যাওয়াই ভালো।

৬. ঠান্ডা লাগলে রোগজীবাণুর আক্রমণ বাড়ে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে প্রচুর শাকসবজি ও ফলমূল খান। গরম দুধ ও দুগ্ধজাত খাবার যেমন দই, পনির ইত্যাদি ঠান্ডায় তাপ ও শক্তি জোগায়।

৭. বাড়ির ভেতর বা উঠানেও ব্যায়াম সেরে ফেলতে পারেন।

সূত্র: ফিজিওনিউজ 24

এ বিষয়ে আরও পড়ুন   মিলনকালে কনডম ফেঁটে বা খুলে গেলে কি করবেন?