গরমে যেসব খাবার এড়িয়ে চলবেন

গরমে মানুষের দেহে পানি শুন্যতার সৃষ্টি হয়, কারন প্রচন্ড ঘামের ফলে দেহ থেকে বের হয়ে যায় পানি। এতে করে মানুষ ক্রমাগত অসুস্থ হয়ে পরছে। তবে একটু সচেতন হয়ে এই গরমে কিছু খাবার নিয়মিত খাদ্য তালিকায় রাখলে কিছুটা মুক্তি মিলবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

এই গরমে আমরা আপনার সুস্বাস্থ্য কামনা করি। ঘামের ফলে আপনার শরীর থেকে পানি বের হয়ে যাই, তাই আপনি বেশি বেশি ঠাণ্ডা, পানি পাওয়া যায় এবং আপনার শরীরে পানি ধরে রাখে এমন খাবার খাদ্য তালিকায় যুক্ত করেন। তবে এক্ষেত্রেও আপনাকে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে, আপনি অবশ্যই কেমিক্যাল এবং ফরমালিন মুক্ত খাবার খাবেন।
গরমে খাবার খাওয়ার একটু সতর্ক থাকা উচিত। কারণ এ সময় এমনিতেই প্রকৃতির তাপমাত্রা অনেক বেশি থাকে। তাই একটু তরল বা ঠাণ্ডা জাতীয় খাবার খাওয়াই ভালো।
গরমে যেসব খাবার এড়িয়ে চলবেন

এখানে যে খাবারগুলো এড়িয়ে চলা উচিত তার একটা তালিকা দেয়া হলো।

গরুর গোশত : গরুর গোশত আমাদের দেহে অনেক বেশি তাপমাত্রা উৎপাদন করে। এ ছাড়া কোলেস্টেরল বৃদ্ধি, উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা তো রয়েছেই। গরুর গোশত বেশি ঘাম তৈরি করে। এতে দেহে পানিশূন্যতা তৈরি হয়। তখন শরীর অসুস্থ হয়ে পরে।

অতিরিক্ত মসলাযুক্ত খাবার : মসলাযুক্ত খাবার আমাদের দেহের তাপমাত্রা অনেক বাড়িয়ে তোলে। এতে আমাদের হজমের সমস্যাও দেখা দেয়। তাই এই গরমে আমাদের উচিত যতটা সম্ভব কম মসলাযুক্ত খাবার খাওয়া।

ফাস্ট ফুড : ফাস্ট ফুড জাতীয় খাবারে অনেক বেশি তেল থাকে। গরমের সময় তেল খেলে আরো গরম লাগে। আবার অনেক ফাস্ট ফুড রয়েছে যেগুলো আমাদের দেহের পানি শুষে নেয়। ফলে এই গরমের মধ্যে আমরা পানিশূন্য হয়ে পড়ি।

অতিরিক্ত চা ও কফি : অনেকেরই অভ্যাস আছে সকালে বা বিকেলে এক কাপ চা বা কফি খাওয়া। কিন্তু এর বাইরে চা বা কফি পান করা গরমকালে শরীরের জন্য একেবারেই ভালো নয়। চা বা কফির ক্যাফেইন দেহকে ডিহাইড্রেট করে ফেলে। এতেও আমরা অতিরিক্ত গরমে অসুস্থ বোধ করি।

এ বিষয়ে আরও পড়ুন   কোল্ডড্রিঙ্ক বাড়িয়ে দেয় কিডনি বিকল হওয়ার সম্ভাবনা

গরমে যেসব খাবারে নিয়ন্ত্রণ প্রয়োজন!

১. অতিরিক্ত তেল গ্রহণ
২. ডুবো তেলে ভাজা খাবার
৩. ঘি, মাখন, পনির, মেয়নেজ, ফাস্টফুড
৪. কোল্ডড্রিংক্স
৫. পোলাও, কাচ্চি, গরু ও খাশীর মাংস
৬. ভূনা খাবার
৭. অতিরিক্ত মিষ্টি খাবার
৮. অতিরিক্ত গরম ও ঠান্ডা খাবার।

সূত্র: হেল্থ বাংলা